যে বিষয় কেড়ে নিতে পারে আপনার সুন্দর হাসি

সংবাদ প্রতিনিধি ১০:৩১ মিঃ, জুলাই ১৪, ২০১৯ Views : 411

দাঁত থাকতে আমরা অনেকেই দাঁতের মর্ম বুঝি না। আর র্মম না বোঝার কারণে না জেনেই দাঁতের অনেক ক্ষতি করে ফেলি। পরবর্তীতে শুরু হয় দাঁত ব্যথঅ ও মাড়ির যন্ত্রণা। আর দাঁত ব্যথা কিংবা মাড়ির যন্ত্রণা নিয়ে কি আর সুন্দর করে হাসা যায়? তাই আসুন জেনে নেওয়া যাক দাঁতের ক্ষতি করে এমন কিছু বিষয়ের কথা। সাধারণ কলের পানিতে ৬০% ফ্লোরাইড থাকে। কিন্তু বেশিরভাগ মিনারেল ওয়াটারের বোতলের পানিতে প্রয়োজনের চাইতে কম মাত্রার ফ্লোরাইডর থাকে। ফ্লোরাইড দাঁতের কাঠামোকে রক্ষা করে। আর ফ্লোরাইডের সবচেয়ে ভালো একটি উৎস হলো পানি। তাই যারা নিয়মিত মিনারেল ওয়াটারের বোতল কিনে পানি খান তাদের দাঁত ফ্লোরাইডের অভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। মিনারেল ওয়াটার না খেয়ে কলের পানি ফুটিয়ে পান করা উচিত। 

  • ক্যান্ডি

চিনি সরাসরি দাঁতের ক্ষতি করতে না পারলেও চিনি খাওয়ার ফলে সৃষ্টি এসিড ও কার্বোহাইড্রেট দাঁতের ক্ষতি করে। চিনি জাতীয় কিছু খাওয়ার পরে মুখের ব্যাকটেরিয়া থেকে সৃষ্টি এসিড দাঁতের এনামেল নষ্ট করে দেয় এবং দাঁত ক্ষয় ও মাড়ির সমস্যা সৃষ্টি করে। তাই ক্যান্ডি বা অন্যান্য মিষ্টি জাতীয় খাবার খেলে সাথে সাথেই দাঁত পরিষ্কার করে নিন। 

  • ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিস হলে শরীরের কোনো সংক্রমণ শুকানোর ক্ষমতা কমে যায়। তাই ডায়াবেটিস যাদের আছে তারা মাড়ির বিভিন্ন সংক্রমণে আক্রান্ত হতে পারেন। এক্ষেত্রে নিয়মিত দাঁত মাজা, কুলি করা এবং ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা উচিত। 

  • তামাক

ধূমপান করলে দাঁত হলুদ হয়ে যায় এবং দাঁতের ক্ষতি হয়। তামাকেরএকটি উপাদান আছে যা দাঁতে একটি প্রলেপ সৃষ্টি করে এবং ব্যাকটেরিয়া উৎপাদন করে। ফলে মাড়ির সংক্রমণ ও দাঁত ক্ষয় হয়। 

  • গর্ভধারণ

গর্ভকালীন সময় ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্ট্রেরন নামে দুটি হরমোনের পরিবর্তন হয় শরীরে। এই পরিবর্তনের ফলে মাড়ি ফোলা,

  • দাঁতে দাঁতে ঘষা

অনেকেই রেগে গেলে, ঘুমের মধ্যে কিংবা বিষণ্নতায় দাঁতে দাঁত ঘষেন। দাঁতে দাঁত ঘষলে দাঁতের এনামেল নষ্ট হয়ে যায় এবং শিরশিরে অনুভূতি হয়। এছাড়া দাঁত ক্ষয় , দাঁত ব্যথা ও চোয়াল ব্যথা হতে পারে। 

  • শুকনো মুখ

অনেকক্ষণ ধরে তরল কোনো খাবার না খেলে মুখের মাঝে ব্যাকটেরিয়া ও ক্ষতিকর এসিড সৃষ্টি হয় 

এবং দাঁতের ক্ষতি করে। তাই কিছুক্ষণ পরপরই পানি কিংবা চিনি ছাড়া তরল কিছু খান। এছাড়াও চিনি ছাড়া চুইংগাম চিবুতে পারেন। 

  • ডায়েটিং

ডায়েটিং এর সময় খাবার তালিকা থেকে বিশেষ কিছু খাদ্য উপাদান বাদ পড়ে গেলে সাধারণত দাঁতের ক্ষতি হয়। বিশেষ করে ফলিক এসিড,ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন সি এর অভাবে দাঁত ও মাড়ির বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে। 

  • কোমল পানীয়

কোমল পানীয়তে প্রচুর পরিমাণে চিনি আছে যা দাঁত ক্ষয়, মাড়ির সমস্যা এবং সংক্রমণ সৃষ্টি করতে পারে। তাছাড়া গাঢ় রঙের কোমল পানীয়গুলো দাঁতে দাগ সৃষ্টি করে। তাই দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে এগুলো এড়িয়ে চলাই ভালো। আর যদি খেতেই হয় তাহলে স্ট্র দিয়ে খান। তাহলে সরাসরি দাঁতে লাগবে না। 

  • দাঁতের ফাঁক পরিষ্কার না করা

খাওয়ার পর সবারই দাঁতের ফাঁকে কিছু খাবার আটকে থাকে। এই আটকে যাওয়া খাবারগুলো বের করে না ফেললে এগুলো ব্যাকটেরিয়া সৃষ্টি করে। ফলে মাড়ির বিভিন্ন সমস্যা এবং মুখে গন্ধ সৃষ্টি হয়।